আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটার স্মিথ

[X]

আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার জিতেছেন স্টিভেন স্মিথ। ২০১৫ সালের সেরা টেস্ট ক্রিকেটারের পুরস্কারও উঠেছে অস্ট্রেলিয়া অধিনায়কের হাতে। আর টানা দুই বারের মতো বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটার হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্স।

smith

অস্ট্রেলিয়ার চতুর্থ খেলোয়াড় হিসেবে বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্স ট্রফি জিতলেন স্মিথ। এর আগে অস্ট্রেলিয়ার রিকি পন্টিং (২০০৬ ও ২০০৭), মিচেল জনসন (২০০৯ ও ২০১৪) ও মাইকেল ক্লার্ক (২০১৩) আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতেন।

২০০৪ সাল থেকে চালু হওয়া বর্ষসেরা ক্রিকেটারের এই পুরস্কার জেতা একাদশ খেলোয়াড় স্মিথ। পুরস্কারটি জিতে দারুণ রোমাঞ্চিত অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক।

“দলের সাফল্যই যেখানে আমার কাছে এক নম্বর অনুপ্রেরণা, সেখানে এই ধরনের পুরস্কার খুব বিশেষ। এই পুরস্কার পেয়ে আমি রোমাঞ্চিত এবং গর্বিত।”

পুরস্কারের জন্য খেলোয়াড়দের ২০১৪ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

এই সময়ের মধ্যে টেস্ট ক্রিকেটে ৮২.৫৭ গড়ে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৭৩৪ রান করেন স্মিথ। আর ওয়ানডেতে ৫৯.৪৭ গড়ে করেন ১ হাজার ২৪৯ রান।

দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়ানডে অধিনায়ক ডি ভিলিয়ার্স বিবেচনায় নেওয়া সময়ের মধ্যে ওয়ানডেতে ৭৯.০৬ গড়ে ১ হাজার ২৬৫ রান করেন। আর তার স্ট্রাইক রেট ছিল অভাবনীয়, ১২৮.৪২।

বর্ষসেরা উদীয়মান ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতেন অস্ট্রেলিয়ার জশ হেইজেলউড। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে টেস্ট অভিষেক হয় ২৪ বছর বয়সী এই পেসারের। বিবেচনায় নেওয়া সময়ের মধ্যে টেস্টে ৪০ উইকেট পান তিনি।

ক্ষিণ আফ্রিকার ফাফ দু প্লেসি জেতেন টি-টোয়েন্টির বর্ষসেরা পারফরম্যান্সের পুরস্কার। এ বছরের জানুয়ারিতে জোহানেসবার্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৫৬ বলে ১১টি চার ও ৫টি ছয়ে ১১৯ রান করেছিলেন তিনি।

বর্ষসেরা নারী ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতেন অস্ট্রেলিয়ার মেগ ল্যানিং।

বর্ষসেরা আম্পায়ারের পুরস্কার পান ইংল্যান্ডের রিচার্ড কেটেলবরো।

More from my site

Leave a Reply